Back Home Islamic Post আমরা কি দিন দিন ইসলাম ধর্ম থেকে দূরে সরে যাচ্ছি?
BDBoiGhor.com

আমরা কি দিন দিন ইসলাম ধর্ম থেকে দূরে সরে যাচ্ছি?

মোবাইল দিয়ে ফ্রি তে ইনকাম করুন হাজার হাজার টাকা, বিস্তারিত জানতে ভিজিট করুন

আসসালামু আলাইকুম, আশা করি আপনারা ভালো আছেন।আমিও আল্লাহর রহমতে ভালো আছি।সকলের কম বেশি কিয়ামতের আলামত সম্পর্কে জানা আছে।ইউটুউবে গেলেই মাঝে মাঝে এরকম ভিডিও আসে।এতো দিনে এই সম্বন্ধে সবার ছোট খাটো ও ভালো ধারণা রয়েছে।কিছু কথা একটু মনে করিয়ে দেই হযরত মুহাম্মদ (সা.) কে নিয়ে ব্যাঙ্গচিত্র ও তাকে কুট উক্তি করা নিয়ে সাম্প্রতি কত কিছু হলো।আচ্ছা ইহুতি কিংবা ভিন্ন ধর্মের লোকজন কেমন করে আমাদের প্রিয় নবীকে নিয়ে এমন সব ঘটনা ঘটায়?? এর কারণ আমাদের ইমানের শক্তি বর্তমানে কমে গেছে।তারা যখন এধরনের কিছু করে, তখন আমাদের ইমান জেগে উঠে।তত দিন পর্যন্ত ঘুমন্ত থাকে।আরে ভাই আমরা মুসলিমরা কেমন হয়ে গেছি আজ একটু নিজেকে প্রশ্ন করুন? নবম-দশম শ্রেণির বাংলা সাহিত্য বইয়ে প্রমথ চৌধুরী যে কথাটা বলা ছিল, সেটা সকলেই জানেন।আমি তবুও বলছি, মুসলমান ধর্মে মানবজাতি দুই ভাগে বিভক্ত।এক যারা কেতাবি, আর এক যারা তা নয়। সত্যি আজ আমরা বিশেষ করে বাঙালি মুসলিম সমাজ দুইভাগ।এক নামাজী, আরেক বে নামাজী।অনেকে তো আমরা জুলফি মুসলীম, সপ্তাহতে জুমার নামাযে যাওয়া হয়।অর্থাৎ বর্তমান বাংলাদেশের মাদ্রাসায় যারা পড়ে তাদের জন্য নামায, কুরআন, রোজা, যাকাত।আর স্কুল, কলেজে পড়লে এগুলোর দরকার কি? আলাহ্ তায়ালা কি কোথাও বলেছে যারা স্কুল, কলেজে পড়বে তারা নামায আদায়, রোজা রাখতে পারবে না কিংবা অফিসে কাজ অথবা হালাল ব্যবসা করলে এগুলো করা যাবে না? আমরা হয়তো কখনো কখনো পাঁচ ওয়াক্ত সালাত আদায় করতে পারি না।কিন্তু আমার পক্ষে যতটা সম্ভব চেষ্টা করি, তবেই একদিন পাঁচ ওয়াক্ত ধৈর্য্যের সাথে আদায় করতে পারবো।আমাদের মধ্যে যদি সব সময় ইমানি শক্তি থাকে তবেই এরকম ঘটনা ঘটবে।এখন বলতে পারেন সাম্প্রতি ঘটনার এতো দিন পরে এসব বলার কারণ কি? কারণ একটাই আমরা সেগুলো ভুলে গেছি, আর অপেক্ষায় আছি আবার নতুন কি ঘটে? তখন আবার ইমানদার হবো।আজকে এই পোস্ট করার উদ্দেশ্য ইমান ঠিক রাখার জন্যে, ইহুদিরা যেন আর এধরনের কিছু করার সাহস না পায়। আজ ইউটুউব কিংবা ফেসবুক সব জায়গায় শর্টসের ফিচার শুরু করেছে।ফেসবুকে যদিও এটা ছিল না কিন্তু বেশ কিছু দিন ধরে লক্ষ্য করছি ফেসবুক লাইটে এই ফিচার যুক্ত হয়েছে।যার ফলে ছোট খাটো টিকটক ভিডিও দেখানো হচ্ছে ইউটুউব ও ফেসবুকে।টিকটকে ঠিক কতটা নগ্নতা হচ্ছে তা সকলেই কম বেশি জানে।ইদানিং ফেসবুক ভিডিওতেই সেই সকল শুরু হয়ে গেছে।এখন আর পর্ণ আসক্তিদের কষ্ট করে ভিপিএন অন করে সানি লিওন দেখতে হয় না।ফেসবুকে গেলে আপনা আপনি আসে।তবে আপনি যে সকল ভিডিও দেখুন ফেসবুক অথবা ইউটুউবে ঐ রিলেটেড ভিডিওই আসবে, এটা এসইও এর খেলা। কিয়ামত যে কতটুকু দূরে তা আমরা আন্দাজ করতে পারি।এখনো সময় আছে সত্যিকার অর্থে মুমিন হন।মৃত্যুর যে কোনো সময় নেই সকলেই জানি।তবে আমরা ভুলে যাই।তাই মৃত্যুর আগে আপনার আখিরাতের জীবনের জন্য ভালো কিছু করে যান।যা আখিরাতের চির সুখ ও কল্যাণ বয়ে নিয়ে আসতে পারে।যুবক সমাজ, পশ্চাত্যের কারণে যুবসমাজের একটা অংশ পর্ণ গ্রাফি ও হস্তমৈথনে আসক্ত।এখনো তো বিয়ের বয়স হয় নি, বিয়ে করতে দেরী আছে।পরে যখন বিবাহ করবো ডাক্তার দেখিয়ে ঠিক হয়ে যাবো।যুবক পর্ণ দেখা কতটা হারাম তা আপনিও জানেন আমিও জানি।আমরা আজ সকল কিছুই জানি, আল্লাহ্ কি হালাল করছে, কি হারাম করছে সবকিছুই জানি।কেবল শুধু মানি না।তওবা করুন, ফিরে আসুন আল্লাহ্ নিশ্চয় পরম দয়ালু।অতীতের সকল পাপ তিনি দয়া করে মায়া করে মুছে দিতে পারে।আপনার সওয়াবের পাল্লা তিনি চাইলেই ভারী করে দিতে পারেন।আসুন অন্ধকার থেকে ইসলামের আলোয় নিজ জীবনকে আলোকিত করি।একজন প্রকৃত মুমিন হয়ে ইমান নিয়ে মৃত্যুর স্বাদ গ্রহণ করি।পরকালীন জীবনের জন্য কিছু নিয়ে যাই।জাহান্নাম ও অন্ধকার জীবনের পথ থেকে আলোতে আসি।

159206

Comments

2

sazzadur011

উপার্জনকারী Time: 2 months ago

Maybe

Admin

উপার্জনকারী Time: 2 months ago

Nice post 🥰

স্পনসর